মুম্বই: বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর, মাদক কাণ্ডে বলিউড অভিনেতা অরমান কোহলি সহ গ্রেফতার দুই জনের জামিনের আবেদন খারিজ করল নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাবস্ট্যান্সের (NDPS) বিশেষ আদালত। 

মাদক মামলায় ২০২১ সালের অগাস্ট মাসে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (NCB) গ্রেফতার করে ‘বিগ বস ৭’ প্রতিযোগী অভিনেতা অরমান কোহলিকে। পিটিআইয়ের রিপোর্ট অনুযায়ী তাঁর বাড়ি থেকে এনসিবি নিষিদ্ধ মাদক দ্রব্য উদ্ধার করে। এরপর গ্রেফতারের পর তাঁকে লাগাতার জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়। 

 

অন্যদিকে, ২০ অক্টোবর পর্যন্ত শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান খানের জামিনের আবেদনের রায় স্থগিত রাখল আদালত। ক্রুজ কর্ডেলিয়া মাদককাণ্ডে জেলেই শাহরুখ পুত্র আরিয়ান খান। গতকাল, অর্থাৎ বুধবার জামিনের আবেদন এর শুনানি ছিল। কিন্তু গতকাল খারিজ হয়ে যায় সেই আবেদন। ফলে গতকাল রাতেও জেলেই কেটেছে আরিয়ানের। আজ আবেদন খারিজ হওয়ার পর ২০ অক্টোবর পর্যন্ত জেলেই থাকতে হবে শাহরুখ পুত্রকে।

শুক্রবার থেকে আর্থার রোড জেলে রয়েছেন আরিয়ান খান। শুক্রবার আরিয়ানের অন্তর্বর্তী জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন তাঁর আইনজীবী। অ্যান্টি ড্রাগ এজেন্সি  আরিয়ানকে শুক্রবার পর্যন্ত কাস্টডিতে রাখতে চেয়ে আদালতের কাছে আবেদন জানায়। আদালত এনসিবিকে বুধবার সকাল পর্যন্ত সময় দিয়েছিল। সেই শুনানিও পিছিয়ে বৃহস্পতিবার হবে বলে জানা যায় গতকাল।

এরইমধ্যে বড় অভিযোগ জমা পড়ে মহারাষ্ট্রের পুলিশের কাছে। যিনি অভিযোগ জমা দিয়েছেন তিনি নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)-এর জোনাল ডিরেক্টর, সমীর ওয়াংখেড়ে। শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান খানের গ্রেফাতারির পর থেকে তাঁর নাম সব মহলেই পরিচিত। ক্রুজ -কর্ডেলিয়া মাদক কাণ্ডে কিং খানের ছেলেকে গ্রেফতারের পর থেকে এক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি সমীর ওয়াংখেড়ের পিছু নিচ্ছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন তিনি। এ বিষয়ে মহারাষ্ট্র পুলিশের সঙ্গে দেখাও করেন তিনি। সমীর ওয়াংখেড়ের কথায়, সাধারণ পোশাক পরিহিত বেশ কয়েক জন ব্যক্তি অনেকদিন ধরে তাঁকে অনুসরণ করছে। একটি জাতীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে যে সমীর ওয়াংখেড়ে এই ঘটনার কথা জানিয়ে একটি সিসিটিভি ফুটেজও প্রমাণের অংশ হিসেবে জমা দিয়েছে। যেখানে তিনি ‘গুপ্তচরবৃত্তির’ অভিযোগ জানিয়েছেন।





Source link

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here